মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৫৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম:
লক্ষ্মীপুরে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ও ক্রীড়া সামগ্রী বিতরণ লক্ষ্মীপুর পৌরসভার সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী আব্দুল মতলব’র ব্যাপক গণসংযোগ রায়পুরে বেদে ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর শিক্ষার্থীদের মাঝে ১৫ লাখ টাকার চেক বিতরণ রায়পুরে নবনির্মিত শহীদ মিনার উদ্বোধন করলেন নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়ন এমপি রায়পুর উপজেলা ডিজিটাল সেন্টার উদ্বোধন করেন এড. নয়ন এমপি রায়পুরে করোনা আক্রান্তদের মাঝে অক্সিজেন সিলিন্ডার বিতরণ উদ্বোধন শোক দিবসে লক্ষ্মীপুরে আওয়ামী লীগের আলোচনা সভা ও দোয়া লক্ষ্মীপুরে বিভিন্ন ইউনিয়নে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি উপহার দিলেন নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়ন এমপি রায়পুর হাসপাতালে করোনা রোগীদের জন্য অক্সিজেন সিলিন্ডার হস্তান্তর রায়পুরে ক্ষতিগ্রস্থ উদ্যোক্তাদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর প্রনোদনার চেক বিতরণ

কৃষকের ধান কেটে দিতে শিক্ষক–শিক্ষার্থীকে মাউশির অনুরোধ

ডেক্স নিউজ / ৪২০ পড়া হয়েছে:
প্রকাশের সময়: মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৫৬ পূর্বাহ্ন

করোনাভাইরাসের কারণে বিদ্যমান পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বোরো ধান কাটায় সহায়তা করতে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য গতকাল মঙ্গলবার দেশের সব কলেজের অধ্যক্ষ ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, মাউশির আঞ্চলিক পরিচালক, উপপরিচালক, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

মাউশির মহাপরিচালক সৈয়দ গোলাম ফারুক বলেন, স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ধান কেটে দেওয়াসহ আনুষঙ্গিক সহায়তা দিতে বলা হয়েছে। মাউশির নির্দেশনায় বলা হয়, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে যেসব অঞ্চলে বোরো ধান আহরণের ক্ষেত্রে কৃষকদের সহায়তা করা প্রয়োজন, সেসব এলাকার কৃষকদের প্রয়োজনীয় সহায়তা দিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানদের অনুরোধ করা হলো। প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে তাঁরা (প্রতিষ্ঠান প্রধান) অন্যান্য শিক্ষক এবং দায়িত্ববোধসম্পন্ন ও প্রশক্ষিণপ্রাপ্ত (স্কাউটস, রোভার স্কাউটস ইত্যাদি) শিক্ষাথীকে নিয়ে তাঁদের প্রতিষ্ঠান–সংলগ্ন এলাকার কৃষকদের সহায়তায় এগিয়ে যাবেন। প্রয়োজনে কৃষকদের প্রতিষ্ঠানপ্রাঙ্গণ ব্যবহারের সুযোগ দিতে হবে। এর আগে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর দেশের অন্য এলাকা থেকে হাওর এলাকায় ধান কাটতে যাওয়া শ্রমিকদের থাকার জন্য সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এ বিষয়ে ওই সব এলাকার মাঠপযার্য়ের কর্মকর্তাদের বলা হয়েছে।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ বলেন, শ্রমিকদের থাকার পাশাপাশি ধানমাড়াইয়ের জন্য প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ ব্যবহারের সুযোগ দিতেও বলা হয়েছে।